সংগৃহীত

বাংলাম্যাপ ডেস্কঃ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা মানবদেহের প্রতীরক্ষা ব্যবস্থার মত। এই ক্ষমতা যার শরীরে যত বেশি, তার রোগ-বালাই হওয়ার প্রবনতা তত কম। অনেক সময় বেশ কঠিন রোগ থেকেও শরীরে রোগ প্রতিরোধ শক্তি বেশি থাকার কারণে ঔষধ সেবনের পূর্বেই মানুষ আরোগ্য লাভ করতে পারে।

যাদের শরীরে রোগ প্রতিরোধ শক্তি কম, তারা অল্পতেই নানান রোগে আক্রান্ত হতে পারে। ডাক্তারের কাছে ছোটাছুটি করতেই তাঁদের দিন অতিবাহিত হয়। করোনায় আক্রান্ত হয়ে যারা মারা গেছেন তাঁদের অধিকাংশরই রোগ প্রতিরোধ শক্তি দুর্বল ছিলো। চলুন রোগ প্রতিরোধ শক্তি কমে যাওয়ার কয়েকটি লক্ষণ জেনে আসা যাক।

  ১. দুশ্চিন্তার ফলে রক্তে শ্বেত কণিকার সংখ্যা কমতে থাকে। এ শ্বেত কণিকাগুলোই দেহের রোগ-জীবাণুর বিরুদ্ধে লড়াই করে থাকে। তাই নিয়মিত যদি কোনো বিষয় নিয়ে মাত্রাতিরিক্ত দুশ্চিন্তায় ভোগেন, এর মানে হলো দিনকে দিন আপনার রোগ প্রতিরোধ শক্তি কমে আসছে।

২. কয়েকদিন পরপরই রোগ-বালাইয়ে আক্রান্ত হচ্ছেন? সর্দি, কাশি, নিউমোনিয়া, জ্বর আপনার পিছু ছাড়ছে না? এর মানে দাঁড়াচ্ছে আপনার রোগ প্রতিরোধ শক্তি কমে যাচ্ছে। দ্রুত বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।

৩. রাতে ঠিক মত ঘুম হচ্ছে , খাওয়া দাওয়াও নিয়ম মেনেই করছেন- তবুও কি সারাক্ষণ অবসাদ বোধ করেন? ক্লান্তিতে দেহ ভেঙে পড়তে চায় বারবার? দুর্বল রোগ প্রতিরোধ শক্তির ইঙ্গিত এটিই।

৪. ক্ষত সারতে সময় নেওয়াও কিন্তু দুর্বল রোগ প্রতিরোধ শক্তির লক্ষণ। ডায়াবেটিকসহ নানান রোগের বড় লক্ষণও কিন্তু ক্ষত বা ঘা শুকাতে দেড়ি হওয়া।

৫. শরীরের বিভিন্ন জয়েন্ট ও পেশিতে ব্যথা হওয়ার পেছনেও দুর্বল রোগ প্রতিরোধ শক্তি দায়ী।