সংগৃহীত

বাংলাম্যাপ ডেস্কঃ অধিক সময় কম্পিউটার ও মোবাইল ব্যাবহারের ফলে চোখের পানি শুকিয়ে যেতে পারে বলে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। তবে চোখের পানি শুকানোর অন্য কারনও রয়েছে।

বর্তমানে মোবাইল ও কম্পিউটারের ব্যবহার প্রচণ্ড বৃদ্ধি পেয়েছে। তরুণেরা অনেক সময় ধরে মোবাইলে গেইম খেলে। সোস্যাল মিডিয়া ব্যবহারের প্রবনতাও বৃদ্ধি পেয়েছে। এছাড়া দৈনন্দিন জীবনে মোবাইল ও কম্পিউটারের ব্যবহার পূর্বের তুলনায় অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। কিন্তু এর ফলে চোখের সমস্যা বাড়ছে।

এ ব্যাপারে ইস্পাহানী ইসলামিয়া আই ইনস্টিটিউট অ্যান্ড হসপিটালের গ্লকোমা বিভাগের প্রধান, গ্লকোমা বিশেষজ্ঞ ও ফ্যাকো সার্জন ডা. মো. জাফরুল হাসান বলেন, আমরা ডিজিটাল যুগে আছি। আমাদের বেশির ভাগ সময়ই ল্যাপটপ, কম্পিউটার, স্মার্ট ফোন ব্যবহার করতে হয়। এটাও চোখ শুকিয়ে যাওয়ার একটা কারণ হিসেবে কাজ করতে পারে।

তিনি বলেন, আমাদের চোখের দুইপাশে দুইটা গ্ল্যান্ড আছে। সেখান থেকে প্রতিনিয়ত পানি সিক্রেশন হচ্ছে। সিক্রেশন হয়ে আমাদের চোখে দুইটা নালি আছে, সেখান থেকে নাক দিয়ে চলে যায়। এই পানিটা সর্বক্ষণ আসতেছে এবং পানিটাকে ধরে রাখার জন্য বাইরে থেকে একটা তৈলাক্ত সিক্রেশন হচ্ছে। এ সবকিছু মিলে যে একটা কম্পনেন্ট আছে সেটা চোখটাকে ভেজা ভেজা রাখছে। এটা একটা স্বাভাবিক প্রক্রিয়া।

কোনো কারণে যদি সিক্রেশন বন্ধ হয়ে যায়, অথবা সিক্রেশন হচ্ছে কিন্তু পানিটাকে ধরে রাখতে পারছে না, শুকিয়ে যাচ্ছে। এটা কিছু রোগের কারণেও হয়। যেমন আর্থাইটিস এর বিভিন্ন রোগ, থাইরয়েড। এসব কারণে চোখটা শুকনা লাগে। সেজন্য আমাদের সঠিক কারণ নির্ণয় করে চিকিৎসা নিতে হবে।

ল্যাপটপ, কম্পিউটার ও স্মার্টফোন ব্যবহারে এই চক্ষু বিশেষজ্ঞের পরামর্শ, ল্যাপটপ, কম্পিউটার স্মার্টফোন ব্যবহারের ক্ষেত্রে ২০ মিনিট করে ব্যবহার করতে হবে। ২০ মিনিট ব্যবহার করার পর আপনি ২০ সেকেন্ড বা এক মিনিটের জন্য অন্যদিকে একটু দূরে তাকাবেন বা একটু সবুজের দিকে তাকাবেন। এক থেকে দুই মিনিট চোখকে বিশ্রাম দিবেন।

এক্ষেত্রে ল্যাপটপ, কম্পিউটার ব্যবহার করার সময় আপনার বসার লেভেল এবং আপনার কম্পিউটার রাখার লেভেলটা যেন ঠিক থাকে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। আপনার পরিবেশটা খেয়াল রাখতে হবে। আপনি সেন্ট্রাল এসিতে আছেন, নাকি নরমাল পরিবেশে বসে কাজ করছেন সেটিও দেখার বিষয়। সেন্ট্রাল এসিতে থাকার ফলে চোখটা শুকনা হয়ে যায়। সবকিছু মেনে সর্তকতা অবলম্বন করতে হবে। আর এরপরও সমস্যা হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করতে হবে বা ড্রপ ব্যবহার করতে হবে।

সূত্র: ডক্টর টিভি